প্রচ্ছদ

ভারতে প্রেমে ব্যর্থ হয়ে স্বেচ্ছামৃত্যুর আর্জি কিশোরীর

14 January 2018, 04:20

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রতীকী ছবি
This post has been seen 60 times.

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দৈহিক সম্পর্কে জাড়িয়ে ঠকিয়েছে প্রেমিক । এদিকে গর্ভে ন’মাসের সন্তান ৷ অগত্যা, স্বেচ্ছামৃত্যু বরণের আর্জি জানিয়ে প্রশাসনকে চিঠি দিল এক নাবালিকা ৷ ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ভারতের কলকালাতার, পূর্ব মেদিনীপুরের সুতাহাটা থানা এলাকায় ৷ সংবাদ মাধ্যমের কাছ থেকে বিষয়টি জানতে পেরে নড়েচড়ে বসেছে জেলা প্রশাসন ৷ পূর্ব মেদিনীপুরের পুলিস সুপার ভি সলোমন নেসকুমার বলেন,” প্রশাসনে থেকে আমরা তো কাউকে স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি দিতে পারিনা ।  ঘটনাটি আমার অজনা ছিল ।  বিষয়টি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।”  পুলিশ সুপারের নির্দেশে অভিযুক্ত প্রেমিকের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ ৷

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনাটি সুতাহাটা থানা এলাকার খানপুরের ৷ প্রতিবেশী যুবক সিন্টু মণ্ডলের প্রেমে পড়েছিল ১৭ বছরের নাবালিকা । বছর দেড়েকের সম্পর্ক । অভিযোগ, ৯ মাস আগে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নাবালিকার ইচ্ছের বিরুদ্ধে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করে সিন্টু । নাবালিকা অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়লে জানাজানি হয় ঘটনা । পাড়া-প্রতিবেশীদের ডেকে সমস্ত ঘটনা জানিয়ে উভয়পক্ষের সম্মতিতে গত ১৬ নভেম্বর সিন্টুর সঙ্গে ওই নাবালিকার বিয়ের কথা স্থির হয় ।

অভিযোগ, এরপর থেকেই সপরিবারে উধাও হয়ে যায় সিন্টু । পরিবারের অন্যরা ফিরলেও লুকিয়ে বেড়াচ্ছে সিন্টু । এমনকি নাবালিকা ও তার পরিবারকে নিয়মিত ফোন করে খুনের হুমকি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ ৷ স্বভাবতই, চরম আতঙ্কে নাবালিকার পরিবারের । পরিবারের দাবি, বাধ্য হয়েই মেয়ে প্রশাসনের কাছে স্বেচ্ছা মৃত্যুর আবেদন জানিয়েছে । মেয়ের মতো এই লজ্জার হাত থেকে বাঁচতে সপরিবারে মৃত্যুর কথা জানিয়েছেন নাবালিকার মা ।

অভিযোগ, গত ১৯ ডিসেম্বর হলদিয়ার মহকুমা শাসক, মহকুমা পুলিস আধিকারিকের কাছে সমস্ত ঘটনা জানিয়েছিলেন সুতাহাটা থানার খানপুরের ১৭ বছরের ওই নাবালিকা । কিন্তু প্রশাসন কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় নাবালিকা কিশোরী  স্বেচ্ছামৃত্যু বরন করতে চায় । হলদিয়ার মহকুমাশাসক পূর্ণেন্দু শেখর নস্কর বলেন, ‘‘বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে ৷’’

Share

Comments

comments

Shares