100 GB Free Backup
This post has been seen 101 times.

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি বলেছেন দেশপ্রেমকে বুকে লালন করে যারা দেশ ও মানুষের কল্যাণে ত্যাগের রাজনীতি করেছেন তাঁরা ইতিহাসে চিরঞ্জীব এবং অনুসরণীয় হয়ে থাকবেন। ইতিহাসের পাতায় তাদের স্থান সকল সময়ই মর্যাদার আসনে থাকবে।
সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে বুধবার বিকেলে সিলেট শহর (বর্তমান মহানগর) আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি, সিলেট পৌরসভার সাবেক কমিশনার, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম ইর্শাদ আলীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত মন্তব্য করেন।
ইর্শাদ আলী স্মৃতি সংসদ সিলেট আয়োজিত স্মরণসভায় অর্থমন্ত্রী বলেন, ১৯৫০ সালে সিলেটে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠালগ্নে মরহুম দেওয়ান ফরিদ গাজী ছিলেন সিলেট আওয়ামী লীগের মূল খুটি। তার সঙ্গে এডভোকেট হাবিবুর রহমান গংরা অত্যন্ত কষ্ট করে এই সিলেটে আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছেন। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী বিশেষ করে ১৯৭৫ সালের পরবর্তী সময়ে আওয়ামী লীগের চরম দুঃসময়ে মরহুম ইর্শাদ আলী শহর আওয়ামী লীগের নেতা হিসেবে অত্যন্ত দৃঢ় মনোবলের সহিত নীতির প্রশ্নে অবিচল থেকে দলের কান্ডারী হিসেবে হাল ধরে রেখেছেন। যাহার ফলে তৎকালীন সময়ে অসহায় দলীয় নেতাকর্মীরা অনুপ্রেরণা ও শক্তি পেয়েছেন।
অর্থমন্ত্রী মরহুম ইর্শাদ আলীসহ আওয়ামী লীগের সিলেট অঞ্চলের সকল নিবেদিতপ্রাণ নেতাকর্মীর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, তাদের স্বপ্নের সমাজ ও দেশ গঠনে আজ আওয়ামী লীগসহ সকল প্রগতিশীল শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।
অর্থমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে স্মৃতিচারণ করে বলেন, আমি ছাত্রজীবন থেকেই বার বার বঙ্গবন্ধুর সান্নিধ্য লাভ করার সুযোগ হয়েছে। তিনি তখন থেকেই আমাকে ¯েœহ করতেন এবং বিভিন্নভাবে আমাকে উৎসাহিত করতেন। এটা আমার জীবনের বড় সঞ্চয় ছিল। দীর্ঘ সময় দেশ-বিদেশে চাকুরী জীবন শেষে শেষ বয়সে আবার তাঁর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০০১ সালে আরেকটি নতুন জীবন শুরু করে অর্থাৎ আমাকে রাজনীতিতে সক্রিয় হতে হয়েছে। এর ফলে আমি বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছানুযায়ী এমপি, মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে।
অর্থমন্ত্রী বলেন, আমি এখন প্রধানমন্ত্রীর অধীনে। তাঁর হুকুম ছাড়া আমি চলতে পারি না। অনেক সময় ইচ্ছা থাকলেও কিছু করতে পারি না। তবে আমি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে থেকে তাঁর আন্তরিকতা, সহযোগিতা ও দিকনির্দেশনায় দেশের জন্য, মানুষের জন্য কাজ করতে পারছি। অনেক অসম্ভবকে সম্ভব করতে পেরেছি। আমার উপর অর্পিত রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ এ দায়িত্ব সফলভাবে চালিয়ে যেতে পারছি -এটাই তার জীবনের সার্থকতা বলে মনে করেন অর্থমন্ত্রী।
ইর্শাদ আলী স্মৃতি সংসদের আহবায়ক সিলেট শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব সিরাজ বকসের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘ বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের সাবেক প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত ড. এ.কে আব্দুল মোমেন, সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমান, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র আলহাজ বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।
সভায় সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আলহাজ শফিকুর রহমান চৌধুরী, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আ.ন.ম শফিকুল হক ও সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ।
সভার শুরুতে মরহুম ইর্শাদ আলীসহ অন্যান্য মরহুম আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের স্মরণে শোকপ্রস্তাব পেশ করেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল আনোয়ার আলাউর। সভা পরিচালনা করেন অধ্যাপক জাকির হোসেন। সভায় সুচনা বক্তব্য রাখেন মরহুম ইর্শাদ আলীর পূত্র সিলেট শহর যুবলীগের সাবেক সভাপতি আজহার উদ্দিন জাহাঙ্গীর। সভায় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

http://jugapath.com/wp-content/uploads/2017/02/Minister-Pic-22.2.17-01.jpghttp://jugapath.com/wp-content/uploads/2017/02/Minister-Pic-22.2.17-01-150x150.jpgjugapathরাজনীতিলাইফ ষ্টাইলসিলেটঅর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি বলেছেন দেশপ্রেমকে বুকে লালন করে যারা দেশ ও মানুষের কল্যাণে ত্যাগের রাজনীতি করেছেন তাঁরা ইতিহাসে চিরঞ্জীব এবং অনুসরণীয় হয়ে থাকবেন। ইতিহাসের পাতায় তাদের স্থান সকল সময়ই মর্যাদার আসনে থাকবে। সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে বুধবার বিকেলে সিলেট শহর (বর্তমান মহানগর) আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি, সিলেট...

Comments

comments