প্রচ্ছদ


পাক জঙ্গিদের নির্দেশ: ভারতীয় সেনারা আগে মারতে হবে!

29 December 2017, 14:56

নিজস্ব প্রতিবেদক
This post has been seen 276 times.

সাধারণত শীতের সময় জঙ্গিদের আনাগোনা কমে যায়। বরফে জমাট বেঁধে থাকায়, জঙ্গিদের সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ করতে অসুবিধা হয়। কিন্তু, এবছরের রিপোর্ট বলছে অন্য কথা। দেখা যাচ্ছে, ইতিমধ্যেই ৪৯ জন জঙ্গি ভারতে অনুপ্রবেশ করেছে বা করার চেষ্টা করছে। পীর পঞ্জল রেঞ্জ হয়ে ঢুকছে তারা। চলতি বছরে ২০০ জন জঙ্গিকে হত্যা করেছে ভারতীয় সেনা। এদের মধ্যে বেশির ভাগেরই ট্রেনিং চলছিল পাক অধিকৃত কাশ্মীরে। যারা বাকি আছে তাদের এবার নতুন টার্গেট ঠিক করে দেওয়া হয়েছে। সেনা অফিসারদের মেরে ফেলতে হবে, এমনটাই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জঙ্গিদের। সেনা ও আধাসেনার উর্ধতনদের টার্গেট করে মেরে ফেলার নির্দেশই দেওয়া হয়েছে জঙ্গিদের। এদেরকেই প্রথমে মারতে হবে। কোনও সেনা কনভয়ে নয়, কর্তব্যরত না থাকা অবস্থায় সাধারণভাবে ঘোরাফেরার সময়ই টার্গেট করা হবে তাদের।

গত প্রায় তিন দশক ধরে ভারতে অনুপ্রবেশ করছে পাক জঙ্গিরা। কিন্তু অবস্থার কোনও উন্নতি হয়নি আজও। ২০১৩-র পরিসংখ্যানে দেখা যায় ২৭৭ জন জঙ্গি প্রবেশ করার চেষ্টা করেছিল। তার মধ্যে ৩৮ জনকে মেরে ফেলা হয়। ৯৭ জন জঙ্গি ঢুকে পড়ে সীমান্ত পেরিয়ে। আর ২০১৭-র দিকে তাকালে দেখা যাবে এখনও পর্যন্ত ৩৮১ জন অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালিয়েছে। ১০৫ জন পৌঁছেও গিয়েছে কাশ্মীরে। ৫৯ জনকে খতম করা সম্ভব হয়েছে।

দিনকয়েক আগেই সীমান্ত পেরিয়ে ৫০০ মিটার ভিতরে ঢুকে পাক জওয়ানদের খতম করে আসে ভারতীয় সেনার স্নাইপাররা। প্রয়োজনে আবারও এরকম অভিযান চালানো হবে বলে জানানো হয়েছে। গত সপ্তাহে চার ভারতীয় জওয়ান শহিদ হওয়ার পরই এই অভিযানের সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। তারা ৫০০ মিটার ভিতরে ঢুকে যায়। কাশ্মীর সীমান্তে রাওয়ালকোট সেক্টরের কাছ দিয়ে পাকিস্তানে ঢোকে তারা। সঙ্গে সঙ্গে চার পাক সেনা খতম করে দেয় তারা। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পুরোটাই অন্তত গোপনে করা হয়েছে। ভারতীয় সেনা যেভাবে আরও একবার সাহসিকতা দেখিয়েছে তাতে স্যালুট জানিয়েছে গোটা দেশবাসী। সেনার সাহসিকতার প্রশংসা দেশের তাবড় তাবড় রাজনীতিবিদদের মুখেও।

সুত্র: কলকাতা 24×7।


Shares