প্রচ্ছদ


যশোরে আজ ১৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ১২টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী 

31 December 2017, 14:14

নিজস্ব প্রতিবেদক
ফাইল ছবি
Share
This post has been seen 160 times.

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বেলা ৩টায় জনসভায় যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে তিনি ১৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ১২টি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।৩১ ডিসেম্বর রোববার সকালে বিমান বাহিনীর মতিউর রহমান ঘাঁটিতে শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজে যোগ দেবেন তিনি। পরে যশোর ঈদগাহ ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। বিমান বাহিনী সূত্রে জানা গেছে, নবীন ক্যাডেটদের মধ্যে ব্যাজ বিতরণ করবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে নবীন ক্যাডেটদের উদ্দেশে ভাষন দেবেন তিনি।

উদ্বোধন করবেন এমন প্রকল্পগুলোর মধ্যে বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য কপোতাক্ষ নদের জলাবদ্ধতা দূরীকরণ প্রকল্প (প্রথম পর্যায়)। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় শিক্ষার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে ‘নির্বাচিত বেসরকারি কলেজগুলোর উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় যশোর সদরের আমদাবাদ ডিগ্রি কলেজ, শার্শার পাকশিয়া আইডিয়াল কলেজ, বাঘারপাড়া ডিগ্রি কলেজ, বাঘারপাড়ার মির্জাপুর মহিলা কলেজের নবনির্মিত ভবন উদ্বোধন।

মণিরামপুর উপজেলার ৫০০ আসনে শহীদ মশিয়ুর রহমান মাল্টিপারপাস অডিটোরিয়াম, যশোর পাবলিক লাইব্রেরী উন্নয়ন প্রকল্প, যশোর মেডিকেল কলেজের একাডেমিক ভবন, হৈবতপুর, পাতিবিলা, নরেন্দ্রপুর ও মহাকাল ইউনিয়ন ভূমি অফিস ভবন, যশোরের পুলিশ সুপার ভবন ও পুলিশ হাসপাতাল, শেখ রাসেল ভাস্কর্য, ঝিকরগাছা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ও অভয়নগরের মালোপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন নির্মাণ প্রকল্প।

রয়েছে যশোর পৌর সভার অধীনে শহরের ১৩ কিলোমিটার সড়ক ও ২২ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ প্রকল্প। এছাড়াও  প্রধানমন্ত্রী ডজন খানেক কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন বলেও জানান জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এর মধ্যে রয়েছে- ভৈরব নদ খনন, যশোর বেনাপোল ও যশোর খুলনা জাতীয় মহাসড়কের অংশ বিশেষ প্রশস্তকরণ, শহরের ২৫ কিলোমিটার সড়ক ও ২৪ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ, ঝুমঝুমপুর ময়লাখানায় কম্পোষ্ট প্লান্ট, প্রি-ট্রিটমেন্ট প্লান্ট, বায়োগ্যাস প্লান্ট, কন্ট্রোল ল্যান্ডফিল সেল নির্মাণ, ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের সম্প্রসারিত প্রশাসনিক ভবন ও হলরুম নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন।

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের ম্যুরাল, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল জিমনেসিয়াম ভবন ও ছাত্র শিক্ষক মিলনায়তন নির্মাণ, কেশবপুর কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ ও যশোর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণ প্রকল্পেরও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে যশোর সেজেছে নতুন রূপে । যশোর শহরের যে অংশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী যাতায়াত করবেন সেই অংশের সরকারি বেসরকারি ভবনে রং ও চুনকাম করা হয়েছে। আলোক সজ্জা করা হয়েছে বিভিন্ন বড় বড় সরকারি বেসরকারি ভবনগুলোতে। রাস্তায় ২০ হাত অন্তর অন্তর নির্মাণ করা হয়েছে সুদৃশ্য তোরণ। জাতীয় ও স্থানীয় প্রয়াত নের্তৃবৃন্দের নামে উৎসর্গিত এসব তোরণে করা হয়েছে আলোক সজ্জা।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার বলেন,  ‘প্রধানমন্ত্রীর জনসভাস্থল ও আশেপাশের এলাকায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এসএসএফ সদস্য ও পুলিশ বাহিনীর বিশেষ স্কোয়াড কাজ করছেন। পাশাপাশি দলের নেতাকর্মীরাতো আছেই।’ ‘প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় ৫ লাখ মানুষের সমাগম ঘটাতে জেলা আওয়ামী লীগ, আওয়ামী লীগের সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনগুলো গত ১৫ দিন ধরে নানা কর্মসূচী বাস্তবায়ন করছে। জেলা শহর ছাড়াও প্রতিটি উপজেলা ও ইউনিয়ন থেকে গাড়িবহরে দলের কর্মী ও সমর্থকদের জনসভায় নিয়ে আসা ও যাওয়ার জন্য বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।’

Share


Shares