প্রচ্ছদ


চলে গেলেন ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী

06 March 2018, 13:39

নিজস্ব প্রতিবেদক
This post has been seen 812 times.

মুক্তিযোদ্ধা-ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী আর নেই । ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন । মঙ্গলবার দুপুর ১টায় রাজধানীর বেসরকারি ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেন । খ্যাতিমান এই মুক্তিযোদ্ধা হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিট-সিসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন । মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল প্রায় ৭০।

দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক নানা জটিলতায় ভুগছিলেন প্রখ্যাত এই ভাস্কর। ডায়াবেটিস, ব্লাড প্রেশার, হৃদরোগসহ বেশ কয়েকটি অসুখে নানা জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি । একটি মাইল্ড স্ট্রোকও হয় তার ।

ল্যাবএইড হাসপাতালের গণসংযোগ বিভাগের পরিচালক সাইফুল ইসলাম লেলিন গণমাধ্যমকে জানান, দুপুর পৌনে ১টার সময় ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী মারা গেছেন। তিনি কিডনি, ফুসফুসসহ কয়েকটি জটিল রোগে ভুগছিলেন। সর্বশেষ তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। ২৩ ফেব্রুয়ারি তিনি ল্যাবওইড হাসপাতালে ভর্তি হন। এর আগে তিনি দুইবার এই হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

গত ডিসেম্বরে  প্রথম অবস্থায় ল্যাব এইড হাসপাতালে চিকিৎসা চলে প্রিয়ভাষিণীর। কিন্তু পরে অবস্থা খারাপ হলে ল্যাব এইডের চিকিৎসক বোর্ড জানায়, তাদের পক্ষে প্রিয়ভাষিণীকে আরো উন্নত চিকিৎসা দেয়া সম্ভব নয়। তাকে দেশের বাইরে নিয়ে যাবার সুপারিশ করেন সেখানকার চিকিৎসকরা। কিন্তু পারিবারিকভাবে সে সময় তাকে দেশের বাইরে নিয়ে যাওয়া সম্ভব না হওয়ায় বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় । সেখানেই তার পায়ে অস্ত্রোপচার করা হয়।

গত বছরের ১১ আগস্ট তাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেয় সরকার ।  পেশাজীবনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরির পাশাপাশি তিনি ভাস্কর হিসেবেও বেশ জনপ্রিয় । তার প্রকৃতিনির্ভর বিভিন্ন শিল্পকর্ম শিল্পবোদ্ধাদের আকৃষ্ট করে। ঝরা পাতা, শুকনো ডাল, গাছের গুঁড়ি দিয়েই তিনি গৃহের নানা শিল্পকর্ম তৈরি করেন ।
তিনি ২০১০ সালে স্বাধীনতা পদক পান। এছাড়া ‘হিরো বাই দ্যা রিডার ডাইজেস্ট ম্যাগাজিন, চাদেরনাথ পদক, অনন্য শীর্ষদশ পদক, রৌপ্য জয়ন্তী পুরস্কার, মানবাধিকার পুরস্কার পেয়েছেন।


Shares