প্রচ্ছদ


একটি সেঞ্চুরি পাল্টে দেয় ফর্ম!

21 April 2018, 22:51

নিজস্ব প্রতিবেদক
This post has been seen 451 times.

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ব্যাটিংয়ের অনন্য নাম ক্রিস গেইল। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগেও সফল ব্যাটসম্যানদের তালিকায় তার নাম শীর্ষ সারিতে। অথচ ২০১৮ আইপিএলের নিলামের শুরুর দিকে দলই পাননি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ‘ইউনিভার্স বস’ খ্যাত ক্রিস গেইল । কিন্তু শেষ পর্যন্ত তৃতীয় ডাকে ব্যাটিং দানব ক্রিস গেইলকে কিনে নেয় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব । তাও আবার দুই কোটি রুপির ভিত্তিমূল্যে । অখ্যাত জয়দেব উনাদকর যেখানে বিক্রি হন সাড়ে ১১ কোটির বিনিময়ে সেখানে ক্রিস গেইলের নামের পাশে দুই কোটি বেমানান নয় কী ? তবে হতাশ হননি ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই কিংবদন্তি ক্রিকেটার।

২০১৮ আইপিএলে নিজের প্রথম ম্যাচে ৬৩ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলার পর বৃহস্পতিবার অপ্রতিরোধ্য গতিতে ছুটতে থাকা সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে ঝড় তুলে করলেন সেঞ্চুরি। একটি চার আর ১১টি ছক্কার সাহায্যে মাত্র ৫৮ বলেই টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের ২১তম সেঞ্চুরির দেখা পান গেইল। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ১০৪ রানে। তার এই ইনিংসে ভর করেই হায়দরাবাদের বিপক্ষে ১৫ রানের অনায়াসে জয় পায় কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সে ক্ষোভও যেন ঝাড়লেন ৩৮ বছর বয়সী গেইল।ফ্র্যাঞ্চাইজিদের উদ্দেশ্যে গেইল বলেন, ‘অনেক লোক আছে যারা আমাকে এখন বুড়ো ভাবে। কিন্তু আমার মনে হয় না নতুন করে কিছু প্রমাণ করার আছে। ব্যাট করার জন্য উইকেটটি দারুণ ছিল।’ ক্যারিয়ারের ২১তম সেঞ্চুরিটি মেয়ের জন্মদিনে উৎসর্গ করেছেন গেইল।

৫৮ বলে এই সেঞ্চুরিটি ক্রিস গেইলের আইপিএলে করা ছয় সেঞ্চুরির মধ্যে সবচেয়ে ধীরগতির । তবে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের ইনিংস । তার আগে হায়দরাবাদের বিপক্ষে চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে সর্বোচ্চ ১০০ রান করে অপরাজিত ছিলেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। ২০১৫ সালে চেন্নাইয়ে। গেইল যেদিন জ্বলে উঠেন সেদিন রশিদ খানের মতো বোলাররাও টের পান। টি-টোয়েন্টি ম্যাচে চার ওভার বল করে এদিন যে সর্বোচ্চ ৫৫ রান খরচ করেন আফগানিস্তানের এই ক্রিকেটার । তার আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচে চার ওভার বল করে সর্বোচ্চ ৫২ রান দেওয়ার অভিজ্ঞতা ছিল রশিদ খানের।



Shares