প্রচ্ছদ


বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের নিজস্ব কক্ষপথে স্থাপনের কাজ শুরু কাল

19 May 2018, 11:46

নিজস্ব প্রতিবেদক
This post has been seen 274 times.

বাংলাদেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এখন ইন্দোনেশিয়ার ওপর অবস্থান করছে। আগামী দু’দিনের মধ্যে ভারত মহাসাগর, পাপুয়া নিউগিনি ও ফিলিপাইনের ওপর দিয়ে গিয়ে নির্দিষ্ট কক্ষপথে প্রবেশ করবে স্যাটেলাইটটি। এ দিকে মহাকাশে অবস্থানরত বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর সঙ্গে গাজীপুর ও বেতবুনিয়ায় অবস্থিত গ্রাউন্ড স্টেশনের সংযোগ স্থাপনের জন্য আগামীকাল রবিবার থেকে কাজ শুরু করবেন স্যাটেলাইট নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ফ্রান্সের থ্যালাস অ্যালেনিয়ার দুটি কারিগরি দল। গতকাল শুক্রবার সকালে ৩ সদস্যের প্রথম দলটি ঢাকায় এসে পৌঁছেছে। আজ শনিবার আরো ৩ জনের আসার কথা রয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব কথা জানা গেছে। চুক্তি অনুযায়ী তিন বছর পর্যন্ত এ স্যাটেলাইটির কারিগরি পরিচালনার দায়িত্বে থাকবে থ্যালাস। তিন বছর পর বাংলাদেশের কাছে পরিচালনার পুরো দায়িত্ব বুঝিয়ে দেয়া হবে। এ জন্য থ্যালাস থেকে আগেই ১৮ জন বাংলাদেশি প্রকৌশলীকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। থ্যালাসের কারিগরি দলের সঙ্গে থেকে তারা হাতে-কলমে স্যাটেলাইট পরিচালনার সব কিছু আয়ত্ত করে নেবেন।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফুল ইসলাম জানান, প্রথম বছর থ্যালাসের লোকজন কাজ করবে। তাদের সঙ্গে থেকে অভিজ্ঞতা অর্জন করবে বাংলাদেশের প্রকৌশলীরা। পরের বছর থ্যালাস ও বাংলাদেশের প্রকৌশলীরা যৌথভাবে কাজ করবে। আর পরের বছর বাংলাদেশের প্রকৌশলীরা কাজ করবে আর থ্যালাসের প্রকৌশলীরা মনিটরিং করবে। প্রয়োজন হলে সহায়তা দেবে। এভাবে ধাপে ধাপে বাংলাদেশের প্রকৌশলীরা স্যাটেলাইটটি পরিচালনার জন্য পুরোপুরি দক্ষ হয়ে উঠবে বলে জানান তিনি।

সংশ্লিষ্টরা জানান, শুরুতে দুই গ্রাউন্ড স্টেশন থেকেই বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের ‘আইওটি’ (অবকাঠামোর সঙ্গে ডিভাইসের সংযোগ) কাজ করা হবে। বর্তমানে এটি যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি এবং কোরিয়ার তিনটি গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে নিয়ন্ত্রণ করে নিজস্ব কক্ষপথে (১১৯ দশমিক ১ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমার অরবিটাল স্লটে) নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সেখানে স্যাটেলাইটটি পৌঁছতে আরো ২-৩ দিন সময় লাগতে পারে।

স্যাটেলাইটের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের পর তথ্য আদান-প্রদানসহ প্রয়োজনীয় সব কাজ শেষ করতে আরো অন্তত ২০ দিন সময় লাগবে। পরে পরীক্ষামূলকভাবে চলবে আরো দুমাস। মাস তিনেকের মধ্যে এটির বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরুর জন্য বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানির কাছে বুঝিয়ে দেয়া হবে। মূলত গাজীপুর গ্রাউন্ড স্টেশন থেকেই স্যাটেলাইটের নিয়ন্ত্রণের কাজ করা হবে। তবে বিকল্প হিসেবে রাঙামাটির বেতবুনিয়ার গ্রাউন্ড স্টেশনটিও সব সময় প্রস্তুত রাখা হবে।

এদিকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর সব শেষ অবস্থান ইন্দোনেশিয়ার ওপর মহাকাশে বলে জানিয়েছে স্যাটেলাইট পর্যবেক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান স্টাফ ল্যায়ার। গতকাল সংস্থাটির ওয়েবসাইটে দেয়া তথ্যে জানা যায়, ঠিক পথ ধরেই এগোচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু-১’। গতকাল বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টায় ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব কালিমাস্তান প্রদেশের ওপর এটি অবস্থান করছিল। এর আগে বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে ইন্দোনেশিয়ার সুমবা দ্বীপের ওপর দিয়ে নিজ কক্ষপথের দিকে এগিয়ে যাওয়ার ছবিও ওয়েবসাইটে দেয় স্টাফ ল্যায়ার। এটি আগামী দুদিনে ভারত মহাসাগরের ইন্দোনেশিয়া ও পাপুয়া নিউগিনির ওপর দিয়ে ফিলিপাইন হয়ে তার কক্ষপথে প্রবেশ করবে বলে জানায় তারা। সূত্র্র : আমাদের সময়।


Shares